ঢাকা শনিবার, ডিসেম্বর ১৬, ২০১৭


নর্থ সাউথ ইউনিভার্সিটিতে চারদিন ব্যাপী আন্তর্জাতিক ছায়া জাতিসংঘ সম্মেলন শুরু

নর্থ সাউথ ইউনিভার্সিটি (এনএসইউ) মডেল ইউনাইটেড নেশনস ক্লাবের আয়োজনে ৪ দিনব্যাপী ইন্টারন্যাশনাল মডেল ইউনাইটেড নেশনস কনফারেন্স ২০১৭ (আন্তর্জাতিক ছায়া জাতিসংঘ সম্মেলন) শুরু হয়েছে। সম্মেলনের এবারের বিষয় নির্ধারণ করা হয়েছে “বিশ্বশান্তি পুনঃপ্রতিষ্ঠা”।আফগানিস্তান, ভারত, নেপাল ও পাকিস্তান থেকে ৫০জন প্রতিনিধিসহ দেশ-বিদেশের৫০টি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান থেকে প্রায় ৬৫০ জন প্রতিনিধি এ সম্মেলনে অংশগ্রহন করেন। অংশগ্রহনকারীরা বিশ্বশান্তি পুনঃপ্রতিষ্ঠার উপায় খুজে বের করার লক্ষে বিভিন্ন বিষয়ের উপর আলোচনা ও বিতর্কে অংশ নিবেন।

১৫ নভেম্বর বুধবার বিশ্ববিদ্যালয় মিলনায়তনে সম্মেলনের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন প্রধানমন্ত্রীর রাজনৈতিক উপদেষ্টা এইস টি ইমাম। বিশেষ অতিথি ছিলেন সাবেক রাষ্ট্রদূত ও জাতিসংঘে বাংলাদেশের স্থায়ী প্রতিনিধি এ কে আবদুল মোমেন, ভুটানের রাষ্ট্রদূতসোনাম টি রাবগাই, এনএসইউ ট্রাষ্টি বোর্ডের চেয়ারম্যান মোহাম্মাদ শাহজাহান, সদস্য বেনজির আহমেদ এবং এম এ হাসেম। সম্মেলনে সভাপতিত্ব করেন বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক আতিকুল ইসলাম।

শিক্ষার্থীদের গনতন্ত্র, রাষ্ট্রনীতি তথা বিশ্বের রাজনীতি সম্পর্কে ধারণা দেয়া এবং বিশ্বব্যাপী চলমান সমস্যা চিহ্নিত করা ও তার উপযুক্ত সমাধান বের করার উদ্দেশ্যে জাতিসংঘ সাধারণ পরিষদের অধিবেশনের অনুরুপভাবে এ সম্মেলন আয়োজন করা হয়।

মডেল ইউনাইটেড নেশনস ক্লাবের জনসংযোগ পরিচালক রুদানা তাসমিন জানান,আয়োজক হিসেবে আমাদের লক্ষ্য হচ্ছে অংশগ্রহণকারীদের মনে রাখার মত কিছু অভিজ্ঞতা উপহার দেওয়া, যা তাদের ভবিষ্যৎ জীবন আত্মবিশ্বাস বাড়াতে সাহায্য করবে। এমইউএন ক্লাব পারস্পরিক সহযোগিতাপূর্ণ শিক্ষাতে বিশ্বাস করে যার মাধ্যমে বিভিন্ন রকম গুণাবলীকে সমৃদ্ধ করা যায়, যেমন- পারস্পরিক সম্পর্ক উন্নয়ন, উচ্চতর লক্ষ্য স্থাপনে সফলতা, ইতিবাচক মনোভাব, আত্মবিশ্বাস ও মানসিক স্বাস্থ্য উন্নয়ন, সামাজিকীকরণ প্রভৃতি। এ কারনে আমাদের আলোচ্য বিষয় সূচী এমন ভাবে নির্ধারণ করা হয়েছে যেন তাৎপর্যপূর্ণ বিষয়গুলো সবচেয়ে যোগ্য কমিটি মেম্বার দ্বারা পরিচালিত হয়।“

এমইউএন ক্লাবের অপর পরিচালক তানভির বলেন, “অংশগ্রহণের মাধ্যমে শিক্ষা”নীতি অবলম্বন করে শিক্ষার্থীরা আন্তর্জাতিক অঙ্গনের নেতৃত্ব প্রদানকারী ব্যক্তিবর্গের মত সিদ্ধান্ত নিতে শিখতে পারে। এধরনের সম্মেলনে পারস্পরিক তথ্য আদান প্রদানের মাধ্যমে শিক্ষার্থীদের বর্তমান বিশ্বের সমস্যাসমূহ আরো গভীরভাবে বুঝতে সহায়তা করে, যা তাদেরকে এসব সমস্যার সমাধান বের করার ক্ষেত্রে পরোক্ষভাবে অবদান রাখে। এভাবে হাতেকলমে কাজ করার মাধ্যমে অংশগ্রহণকারী শিক্ষার্থীরা বর্তমান বিশ্বের সমস্যা, নেতৃত্ব, দলগতভাবে কাজ করা, পাবলিক স্পিকিং, বক্তৃতা এবং আরো বিবিধ বিষয়ে সামগ্রিক জ্ঞানার্জন করে যা তাদের ভবিষ্যৎ জীবনে এগিয়ে যেতে সাহায্য করে। লেখার বা কথা বলার দক্ষতা অর্জনের পাশাপাশি এর বিভিন্ন কার্যক্রমে অংশগ্রহণ শিক্ষার্থীদের মানসিক বিকাশে সাহায্য করে।“

চারদিনব্যাপী সম্মেলনের দ্বিতীয়দিন ১৬ নভেম্বর কমিটি সেশন শেষে “গ্লোবাল ভিলেজ”আয়োজন করা হবে যেখানে অংশগ্রহণকারীরা নিজেদের দেশের ঐতিহ্যকে সাংস্কৃতিক কার্যক্রমের মাধ্যমে তুলে ধরে।

এছাড়া সম্মেলনের অন্যতম আকর্ষণীয় অংশ “দ্যা ইন্টারন্যাশনাল নাইট” অনুষ্ঠিত হবে হোটেলহোটেল সোনারগাঁএ ১৭ নভেম্বর। দেশের অন্যতম সেরা ব্যান্ড আরবোভিরাস এদিন গান পরিবেশন করবে। ১৮ নভেম্বর বিকালে সমাপনী অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হবে এনএসইউ মিলনায়তনে।সম্মেলন শেষে বিচার বিবেচনায় অংশগ্রহণকারী প্রতিনিধিদের মধ্যে বেস্ট ডেলিগেশন এ্যাওয়ার্ডসহ প্রায় ৫৫টি এ্যাওয়ার্ড দেয়া হবে।

 

আরো খবর পড়ুন

Share on Facebook136Share on Google+0Tweet about this on TwitterShare on LinkedIn0Print this page