ঢাকা শনিবার, ডিসেম্বর ১৬, ২০১৭


দ্য ভিঞ্চির আঁকা চিত্রকর্ম ৪৫ কোটি ডলারে বিক্রি

জগদ্বিখ্যাত চিত্রকর লিওনার্দো দ্য ভিঞ্চির আঁকা ‘সালভেটর মুন্ডি’ নামের একটি চিত্রকর্ম ৪৫ কোটি ডলারের বেশি দামে বিক্রি হয়েছে।

বিশ্বে এ পর্যন্ত যত চিত্রকর্ম বিক্রি হয়েছে, তার মধ্যে দ্য ভিঞ্চির সালভেটর মুন্ডির দামই সবচেয়ে বেশি। প্রায় ৫০০ বছর আগে এই চিত্রকর্ম এঁকেছিলেন তিনি। উল্লেখ্য, সালভেটর মুন্ডি মানে ‘বিশ্বের ত্রাণকর্তা’।

বুধবার যুক্তরাষ্ট্রের নিউ ইয়র্কে নিলামকারী প্রতিষ্ঠান ক্রিস্টি’স হাউস দর কষাকষির পর ৪৫০ দশমিক ৩ মিলিয়ন (৪৫ কোটি ৩ লাখ) ডলারে সালভেটর মুন্ডি বিক্রি করেন। ইতিহাসে সর্বোচ্চ দামে চিত্রকর্ম বিক্রি করতে পারায় ক্রিস্টি’স হাউস ঐতিহাসিক মুহূর্তটির সঙ্গী হয়ে রইল।

ইতালির মহান চিত্রকর দ্য ভিঞ্চি ১৫১৯ সালে মারা যান। তার আঁকা ২০টিরও কম চিত্রকর্ম এখনো টিকে আছে, যার মধ্যে সালভেটর মুন্ডি একমাত্র চিত্রকর্ম, যেটি ব্যক্তিগত মালিকানায় রয়েছে। চিত্র বিশেষজ্ঞদের বিশ্বাস, ১৫০৫ সালে এটি এঁকেছিলেন দ্য ভিঞ্চি।

সালভেটর মুন্ডির দাম হাঁকা শুরু হয় ১০ কোটি ডলার থেকে। সম্ভাব্য ক্রেতাদের একজন নিলাম হাউসে এসে এবং বাকিরা টেলিফোনে দর কষাকর্ষিতে অংশ নেন। মাত্র ২০ মিনিটে ঐতিহাসিক এই নিলাম চূড়ান্ত হয়। ১০ কোটি দিয়ে শুরু করলেও ৪০ কোটি ডলার দাম ওঠে এবং নিলাম প্রতিষ্ঠানের আনুষাঙ্গিক ফিসহ এটি ৪৫ কোটি ৩ লাখ ডলারে বিক্রি হয়।

১৯৫৮ সালে লন্ডনে মাত্র ৪৫ পাইন্ডে বিক্রি হয়েছিল এই চিত্রকর্ম। তবে তখন মনে করা হতো, এটি দ্য ভিঞ্চির নয়, তারই কোনো শিষ্যের আঁকা। তবে চিত্রবিশেষজ্ঞ ও সমালোচকদের মধ্যে এ নিয়ে এখনো বিতর্ক রয়েছে। দি ভিঞ্চির চিত্রকর্ম হিসেবে এটি এখনো সর্বজনীন স্বীকৃতি পায়নি।

এদিকে, নিলাম প্রতিষ্ঠান ক্রিস্টি’স হাউস দাবি করেছে, দ্য ভিঞ্চির সালভেটর মুন্ডি ২০ শতকে চিত্রকর্মের ঐতিহাসিক ও সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ আবিষ্কার। ২০০৫ সালে যখন ঘোষণা দেওয়া হয়, এটি দ্য ভিঞ্চিরই আঁকা ছবি, তখন বিশ্বজুড়ে ব্যাপক সাড়া ফেলে এবং চিত্রপ্রেমীদের আকর্ষণের কেন্দ্রবিন্দুতে পরিণত হয়।

সালভেটর মুন্ডির ক্রেতার পরিচয় প্রকাশ করেনি ক্রিস্টি’স হাউস। রাশিয়ার বিখ্যাত চিত্রকর্ম সংগ্রাহক বিলিয়নিয়ার দিমিত্র রাইবলোভলেভের পরিবারিক ট্রাস্ট ক্রিস্টি’স হাউসের নামে ছবিটি নিলামে তোলে। ২০১৩ সালে এক ব্যক্তির কাছ থেকে ছবিটি তারা ১২৭ দশমিক ৫ মিলিয়ন ডলারে কিনেছিলেন। ১৬ শতকের কোনো এক সময় ইংল্যান্ডের রাজা প্রথম চার্লসের সংগ্রহে ছিল এটি। ২০০৫ সালে এটি পুনরুদ্ধার করা হয়।

তথ্যসূত্র : বিবিসি অনলাইন

আরো খবর পড়ুন

Share on Facebook4Share on Google+0Tweet about this on TwitterShare on LinkedIn0Print this page