ঢাকা শনিবার, ডিসেম্বর ১৬, ২০১৭


সিলেটে এবার ‘পাঠাও’

সিলেট শহরে ভাড়ায় মিলবে মোটর সাইকেল। শহরের ভেতর ছোট, বড় যেকোন গন্তব্যেই যাওয়া যাবে ভাড়া মোটর সাইকেলে। তবে গ্রামগঞ্জের মতো করে নয়। মোবাইল অ্যাপের মাধ্যমে খুঁজে নিতে হবে মোটর সাইকেল। আর এই মোবাইল অ্যাপটি হচ্ছে ‘পাঠাও’। রাজধানী ঢাকা আর বন্দরনগরী চট্টগ্রামের পর এবার সিলেট যাত্রা শুরু করছে শেয়ার এ মোটর সাইকেল ও গাড়ি ভাড়ার প্রতিষ্ঠান ‘পাঠাও’। শুধুমাত্র একটি অ্যাপ ব্যবহারের মাধ্যমেই যাত্রী খুঁজে পাবেন চালক আর চালক খুঁজে পাবেন যাত্রী।

ঢাকা ও চট্টগ্রামের রাস্তায় চালূ হওয়ার পর সারাদেশে ব্যপক সারা ফেলে ‘পাঠাও’। ব্যস্ততম দুই শহরে সফল কার্যক্রমের পর তৃতীয় শহর হিসেবে সিলেটকে বেঁছে নিয়েছে পাঠাও কতৃপক্ষ। সম্প্রতি ফেসবুকে তাদের অফিসিয়াল পেইজে এ সংক্রান্ত একটি ঘোষণা দেয় তারা। এছাড়া ইতোমধ্যে সিলেটে রাইডারদের রেজিষ্ট্রেশনও শুরু করেছে পাঠাও। পর্যাপ্ত রাইডার পেলেই শীঘ্রই সিলেটে যাত্রা শুরু করবে ভাড়ায় মোটর সাইকেল আর গাড়ির সেবা প্রদানকারী প্রতিষ্ঠান পাঠাও।

২০১৫ সালের ১ অক্টোবর থেকে আনুষ্ঠানিক যাত্রা শুরু করলেও’পাঠাও’যাত্রী পরিবহন শুরু করে ২০১৬ এর আগষ্ট থেকে। অ্যাপটির ব্যবহার খুবই সোজা হওয়ায় আর ভাড়ার দিক থেকে সুবিধাজনক হওয়ায় খুব কমসময়েই দেশব্যাপী সারা ফেলে পাঠাও। অ্যান্ড্রয়েড প্লে স্টোর থেকে `pathao’ অ্যাপটি ডাউনলোড করে সহজেই মোবাইল নাম্বার দিয়ে রেজিস্ট্রেশন করা যায়। খুব সংক্ষিপ্তভাএ রেজিস্ট্রেশনের করার পরই গ্রাহক অ্যাপটির সুবিধা গ্রহণ করতে পারবেন।

সিলেট নগরীতে মধ্যবিত্ত ও নিম্ন মধ্যবিত্ত আয়ের মানুষের জন্য নতুন বিকল্প পরিবহন ব্যবস্থা হবে ভাড়ায় মোটরসাইকেল। সেইসাথে থাকছে অর্থ উপার্জনেরও সুযোগও।

‘পাঠাও’ কতৃপক্ষ জানায়-  মোটর সাইকেলের বৈধ কাগজ আর ড্রাইভিং লাইসেন্স থাকলে যে কেউ পাঠাও’র রাআইডার হতে পারবেন। ফ্রি ল্যান্সিং রাইডারদের নির্ধারত রাইডের ৮০ শতাংশ টাকা তাদের কমিশন হিসেবে দেয়া হবে। সেক্ষেত্রে যে কেউ অন্যান্য কাজের পাশাপাশি ‘পাঠাও’ এর সাথে যুক্ত হয়ে অর্থ উপার্জন করতে পারবেন।

ঢাকায় ‘পাঠাও’ সার্ভিসের সর্বনিম্ন ভাড়া ২০ টাকা। প্রতি কিলোমিটারের চার্জ ১০ টাকা। প্রতিমিনিট ওয়েটিং চার্জ ৫০ পয়সা। আপনি যেখান থেকে বাইকে উঠবেন, সেখান থেকে আপনার ভাড়া শুরু হবে।

তবে সিলেটে ভাড়ার পরিমান কেমন হবে এ ব্যপারে এখনো কিছু জানায়নি ‘পাঠাও’ কতৃপক্ষ।

‘পাঠাও’র অ্যাপটি সম্পর্কে জানা যায়, যাত্রী ও চালকের অ্যান্ড্রয়েড ডিভাইসে (মোবাইল ফোন, ট্যাব) অ্যাপটি  ইনস্টল থাকতে হবে। অ্যাপে লগ ইন থাকা অবস্থায় যাত্রী দুই কিলোমিটারে মধ্যে থাকা চালকের (মোটর সাইকেল মালিক) কাছে অনুরোধ পাঠাতে পারবে। চালক অনুরোধ গ্রহণ করে যাত্রীকে গন্তব্যে পৌঁছে  দেবে।  তবে তার আগেই চালক ও যাত্রী পরস্পরের সম্পর্কে যাচাই করে নিতে পারবে।

আরো খবর পড়ুন

Share on Facebook39Share on Google+0Tweet about this on TwitterShare on LinkedIn0Print this page